শহীদ জননী জাহানারা ইমাম ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী লড়াই

প্রকাশকাল |

‘৯৩ সালের ২৮ মার্চ নির্মূল কমিটির সমাবেশে খালেদা জিয়ার সরকার বর্বরোচিত আক্রমণ চালায়। পুলিশের লাঠিতে গুরুতরভাবে আহত হন ক্যান্সার আক্রান্ত শহীদ জননী জাহানারা ইমাম। তার আঘাত এতটাই গুরুতর ছিল যে, তাকে পিজি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করতে হয়েছিল। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে গোটা বাংলাদেশের ভৌগলিক সীমারেখা অতিক্রম করে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার আন্তর্জাতিক মাত্রা লাভ করে ।

  • Comment 3

রাজ্জাকের পদত্যাগ, আদর্শ ত্যাগ নয়

প্রকাশকাল |

‘যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে শীর্ষ জামায়াত নেতাদের মামলা সততা ও একাগ্রতার সঙ্গেই পরিচালনা করেছেন’, এমনই দাবি করেছেন আব্দুর রাজ্জাক। যদি সত্যিই তিনি একাত্তরের ভূমিকার কারণে অনুশোচিত হয়ে থাকেন তাহলে যুদ্ধাপরাধীদের মামলা কীভাবে ‘সততা ও একাগ্রতার সঙ্গে’ লড়তে পারেন? এই বক্তব্যসহ তার আরও অনেক বক্তব্য এখানে পরস্পরবিরোধী।

  • Comment 0

জামায়াতেও মুক্তিযোদ্ধা আছে!

প্রকাশকাল |

একদা বিএনপি নেতা এবং বর্তমানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা কর্নেল অলি আহমেদ তার ‘আমার সংগ্রাম আমার রাজনীতি’ নামক বইতে একাত্তরের রাজাকার এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে তীব্র ধিক্কার জানিয়ে বলেছিলেন, “একবার যে বেঈমানি করে বা দালালী করে সে সারাজীবনই বেঈমানি ও দালালী করতে অভ্যস্ত হয়ে যায়।”

  • Comment 24

ঘাতকের শেষকৃত্য ও আমাদের হিসেবনিকেশ

প্রকাশকাল |

১৫ জুলাই, ২০১৩ যখন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ গোলাম আযমের মানবতাবিরোধী অপরাধের রায় দেন, তখন এই যুদ্ধাপরাধীর বয়স ছিল একানব্বই বছর। ট্রাইব্যুনালের রায়ে তার বিরুদ্ধে আনীত পাঁচ ধরনের অভিযোগের ৬১ ঘটনার সবগুলোই প্রমাণিত। মহামান্য আদালত রায় ঘোষণায় বলেছেন যে, তার অপরাধ নিঃসন্দেহে মৃত্যুদণ্ডের সমতুল্য কিন্তু বয়স বিবেচনায় তাকে নব্বই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

  • Comment 8