আনুষ্ঠানিকতা বিবর্জিত এ পতাকা প্রদর্শন নিয়ে বিতর্কের সূচনা করেছিলেন আ স ম রব এবং তার পরিসমাপ্তি কবে ঘটেছিল বা ঘটবে তাও জানিনা। তবে স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ নিয়ে বিতর্ক নেই।
  • Comment 1
হাতের মাংস বিশেষভাবে আঙুলের মতো কেটে ধরার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন ডাক্তাররা। মাইনের গ্যাস ঢুকে দুটি চোখই তাঁর অকেজো। তাই নিজ চোখে দেখতে পাননি স্বাধীনতার লাল সূর্যটা। তবুও আফসোস নেই।
  • Comment 1
"যখন এদেশে পাকিস্তানি অনুসারী ও রাজাকাররা মন্ত্রী হয়েছিল, তাদের গাড়িতে যখন লাল-সবুজের পতাকা উড়তো- তখন খুব কষ্ট পেতাম। ওটা ছিল আমাদের পরাজয়। মুক্তিযুদ্ধকে অনেকে বলে গণ্ডগোল। স্বাধীনতাটাই তখন অর্থহীন মনে হয়। গণ্ডগোল নয় হয়েছিল মুক্তিযুদ্ধ"- বলেন মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল হক।
  • Comment 1
সেই শত্রুপুরিতে বসেও অনেকে গণহত্যার প্রতিবাদ জানিয়েছেন, এখনও পাকিস্তানি সরকারের ন্যারেটিভের বিপরীতে লিখছেন। সংখ্যায় তারা কম হতে পারেন, কিন্তু ইতিহাসে তো তারাই থাকবেন, অন্যরা নয়। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস চর্চায় আমরা যুদ্ধের অন্যান্য পক্ষের কথা তেমন আলোচনা করি না, লেখালেখিও হয় না।
  • Comment 4