আমি যখন এই লেখাটি লিখছি তখন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানমন্দির” স্থাপন করার জন্য একটা প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে গেছে! কারিগরি কমিটি তৈরি করে তারা একটি সভা পর্যন্ত করে ফেলেছে! কাজেই আমি যদি বলি আমি ভাগ্য বিশ্বাস করতে শুরু করেছি, কেউ কী আমাকে দোষ দিতে পারবে?
  • Comment 12
এমনকি যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তান তাদের জিডিপির ৩ দশমিক ১ শতাংশ লেখাপড়ার পিছনে খরচ করে। প্যালেস্টাইন এখন পর্যন্ত একটা স্বাধীন দেশই হতে পারেনি তারা পর্যন্ত খরচ করে জিডিপির ৫ দশমিক ৭ শতাংশ। একেবারে মুগ্ধ হয়ে যেতে হয় ফিদেল কাস্ত্রের দেশ কিউবার কথা শুনলে, তারা খরচ করে জিডিপির ১২ দশমিক ৯ শতাংশ! আর সারা পৃথিবীরই উন্নয়নের মডেল হয়ে আমরা এতোদিন খরচ করে এসেছি জিডিপির মাত্র ২ দশমিক ২ শতাংশ।
  • Comment 6
সারা পৃথিবীতে যেটাকে সাফল্য হিসেবে দেখা হয় আমাদের দেশে সেটাকে এখনো একটা দুই নম্বুরী কুমতলব হিসেবে বিবেচনা করা হয়! কাজেই পৃথিবীর সমান সমান চিন্তাধারায় পৌছাতে আমাদের আরো বেশি কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে! তারপর না হয় র‌্যাংকিং নিয়ে মাথা ঘামাব!
  • Comment 13
প্রতি বছরই দেখতে পাই পরীক্ষার ফলাফল বের হবার পর বেশ কিছু ছেলেমেয়ে একেবারে আত্মহত্যা করে ফেলে। এই বছর এখন পর্যন্ত পাঁচটি ছেলেমেয়ের খবর পেয়েছি যারা আত্মহত্যা করেছে। সারা দেশে এরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এদের মাঝে ছেলে আছে, তবে মেয়েদের সংখ্যা বেশী। এস.এস.সি পরীক্ষার্থী আছে, সেরকম দাখিল পরীক্ষার্থী আছে।
  • Comment 5