এশিয়া কাপের পর আবার আমাদের আবেগের ঢাকনা খুলে গেছে। আমরা আবেগপ্রবণ জাতি। এটা বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি আমাদের দেশপ্রেম অনেক বেশি। যতদিন যাচ্ছে ততদিন এই আবেগ আর দেশপ্রেম বাড়ছে। যত সংঘাত থাক আর কলহ থাক বাংলাদেশ বলতে আমরা সবাই এক।
এশিয়া কাপের ফলাফল যাই হোক এ খেলার পর বোঝা গেছে মূলত সাম্প্রদায়িকতাও রাজনীতির তৈরি এক অসুর। যার ভিত্তি মানুষের মনে নড়বড়ে। সে কারণে লিটন দাস কোন ধর্মের বা কোন সম্প্রদায়ের সেটা কেউ বিবেচনায় রাখেননি। বরং দেশ ও দেশের বাইরে লিটনই আজ হিরো। লিটন দাস খেলার মাঠেও হিরো ছিলেন ফাইনালের রাতে। তার মাথায় উঠেছে সেরা খেলোয়াড়ের মুকুট। কিন্তু আমাদের আবেগ বা দু:খ তাতে চাপা পড়েনি।
কেন পড়েনি? কারণ আমাদের বিরুদ্ধে সব খেলাতেই কোনও না কোনভাবে এমন সব সিদ্বান্ত দেয়া হয় যা ভিত্তিহীন। সবাই জানেন পাকিস্তান আর ভারত দুটোই ক্রিকেটের পুরনো দল। তাদের অতীত বর্তমান বা ভবিষ্যত মিলিয়ে তারা আমাদের চাইতে হয়তো এখনো এগিয়ে। কিন্তু তারমানে এই না যে, আমরা আগের জায়গায় আছি। বরং আমাদের জায়গা এখন অনেক শক্ত। আমাদের দলের ক্রিকেটাররা যেকোনও সময় রুখে দাঁড়িয়ে যে কোনও ঘটনা ঘটিয়ে দিতে পারেন।
যেকোনও খেলোয়াড়ের তূলনায় সাইজে বা আকারে ছোটখাটো মুশফিক কি করে দেখালো! শ্রীলংকার দিন আমরা ধরে নিয়েছিলেম খেলা শেষ। লজ্জাজনক কোনও পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হবে। এই ছোটখাটো খেলোয়াড়টি সেদিন বুকের সাহস আর খেলার শিল্পে ঝলসে উঠে দেখিয়ে দিয়েছিল খেলা কাকে বলে। এরপর পাকিস্তান বধেও তার তূলনা নাই। দু’ দুটো খেলায় শতরান বা কাছকাছি যাওয়া মুশফিককে পাকি কমেন্টটারদের একজন এই বলে প্রশংসা করতে বাধ্য হয়েছেন, তাকে শচীন, লারা কিংবা রিকি পন্টিং-দের মত small বলা গেলেও short বলা যাবেনা। এই মন্তব্য আমাদের প্রাণিত করেছে। কিন্তু কেন এ জাতীয় মন্তব্য আমাদের কমেন্টেটার করতে পারলেন না?
আমরা সাধারণভাবে জানি ধারাভাষ্যকারেরা কোনও দলের হয়ে কথা বলেন না। আসলে কি তাই? আপনি কখনো গাভাস্কারকে ভারতের কোনও খেলোয়াড়ের সমালোচনা করতে শুনেছেন? বা নিন্দা। যেটুকু বলেন সেটুকু পরাজিত হবার বেদনার দু:খ থেকে। তার বাইরে সবটাই প্রশংসা। রমিজ রাজা পাকিদের খেলার দিন শুরু থকে শেষ অবদি তাদের বন্দনা আর পজিটিভ কথা বলায় ব্যস্ত থকেন। আর এরা বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের এক লাইন প্রশংসা করলে সমালোচনা করেন তিন লাইন। এটা তাদের জন্য স্বাভাবিক ব্যাপার। খেয়াল করবেন যখন কোনও বির্তকিত সিদ্বান্ত বা বিষয় আসে এরা কিভাবে নিজেদের দেশের হয়ে লড়তে শুরু করেন।
এসব কথা আম্পায়রদের কানে যায় কি যায় না- সেটা বড় কথা না। বড় ব্যাপার এগুলো পুরা দুনিয়ার মানুষ শোনে আর প্রভাবিত হয়। আমাদের দেশের ধারা ভাষ্যকার আতাহার আলী খান ভালো বলেন। এমন না তিনি না বুঝে বলেন! কিন্তু দেশের হয়ে জোর গলায় কথা বলা বা প্রতিবাদ তিনি করেন না। অথবা করতে জানেন না।
ভাষ্য মানেই যখন গলাবাজী তখন তা আমাদেরও করতে হবে বৈকি। আমার ধারণা অবিলম্বে এমন একজন বা একাধিক ভাষ্যকারের প্রয়োজন যারা বাংলাদেশ দলের বিরুদ্ধে পণ্ডিত নামে পরিচিত ভাষ্যকারদের মুখোশ উন্মোচন করে বাংলাদেশের হয়ে কথা বলতে পারবেন। এটা না হলে সারা দুনিয়ায় আমরা দুধভাত দল হিসেবেই থেকে যাব। আর উপদেশ শুনতে শুনতে মেরুদণ্ডও বাঁকা থেকে সোজা হতে পারবেনা।
আর একটা কথা বলা দরকার। বাংলাদেশের কত খেলোয়াড় আর ক্রিকেটার আছেন যারা অবসর জীবনযাপন করছেন! কতজন আছেন যারা ক্রিকেটের ব্যাকরণ অন্যদের পড়াতে পারেন। তাদের ভেতর কি দুয়েকজন ছাড়া কি আম্পায়ার হবার মত কেউ নাই? আমাদের দেশের আম্পায়ার থাকা মানে আরেক দেশের খেলোয়াড় ও আম্পায়ারদের মনে একটা সমীহ ভাব থাকবে। থাকবে ভয়ও। টিট ফর ট্যাটের জমানায় ভারসাম্য রাখতে হলে আমাদের একজন আম্পায়ারদের জায়গা করে নেওয়া জরুরী।
মনে রাখতে হবে ভারত পরাশক্তি। তারা হার মানতে নারাজ।  আমাদের কাছে হারাকে  তারা তাদের দেশের ইমেজ বা সম্মান নষ্ট করা মনে করে। এই ফলস প্রাইড বা অযৌক্তিক গর্ব ভাঙতে যে লবিং আর শক্তির দরকার সেটা আমাদের আছে? যদি না থাকে তো এখন থেকে সে পথে হাঁটতে হবে। পাকিস্তান আপাতত বেকায়দায় বলে হার মেনে নিলেও একসময় তারাও এমন সব অনাচার করবে। মিডিয়ায় দেখলাম পাকিস্তানি টিভি শোতে বলা হচ্ছে তারা নাকি আমাদের খেলা শিখিয়েছে। গর্ব করে বলছিলো বাংলাদেশের মত দুধের শিশুর কাছে হারাটা অন্যায়। এসব কথা যে যেভাবেই বলুক মূলত এর পেছনে আছে হামবড়া ভাব। আত্মদম্ভ আর অর্বাচীনতা। সেদেশে রাগ করে টিভি সেট ভাঙার এ দৃশ্যও ভাইরাল হয়েছে। আমাদের তারুণ্যের জন্য এটা লেসান।
এখান থেকে বুঝতে হবে দেশপ্রেমের কাছে ধর্ম বোধ বা রাজনীতি বড় নয়। পাকিস্তানিরা তাদের দেশ ও দলের ব্যাপারে একশ ভাগ নিবেদিত। সে জায়গায় আমরা যেন বুকে মুখে পতাকা বা উল্কি নিয়ে তাদের জয় কামনায় মাঠে না যাই। আমরা যেন কোনভাবেই আমাদের দেশ ও জাতিকে ছোট না করি।
আজ আরো একবার সময় এসেছে যুক্তি আর আবেগকে একত্রিত করার। বাংলাদেশের মানুষ এবং দেশের বাইরের বাংলাদেশিরা একযোগে যে সমর্থন আর ভালোবাসা দেখিয়েছেন তা তুলনাবিরল। সামাজিক মিডিয়ায় আমরা কেঁদে কেটে যতটা আকুল ঝগড়া লড়াইয়ে যতটা পারদর্শী, ততটাই পিছিয়ে আছি অ্যাকশনে। আমাদের যারা কর্তা তারা জিতলে খুশি হন, হারলে রাগ করেন। এমন চেহারা ব্যক্তির হতে পারে, জাতির না। জাতিকে নেতৃত্ব দিতে হলে বলিষ্ঠ ও কর্মমুখর প্রতিবাদী হতে হবে।
যেকোনও জাতি বা দেশকে কেউ এমনিতে জায়গা ছেড়ে দেয়না । জায়গা করে নিতে হয়। আমাদের তরুণেরা তা করছেন। কিন্তু শেষ অবদি আমাদের ঘাড়ে বা কাঁধে যে বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয় তার নাম অন্যায়। সে অন্যায় থেকে মুক্তির পথ এখন ই খুঁজে বের করতে হবে। অন্যথায় হা হুতাশেই নিমজ্জিত থাকবো আমরা।
বলিষ্ঠ ভাষ্যকার , নিজেদের আম্পায়ার, প্রতিবাদী লবিং আর সবাই মিলে রূকে না দাঁড়ালে ভারত পাকিস্তান কিংবা যেকোন দেশের মোড়লীপনা বন্ধ করা যাবেনা। তাই এদিকে মনযোগী হয়ে মাশরাফি মুশফিক লিটনদের হাতে কাপ তুলে দেয়াই হোক আগামী দিনের অঙ্গীকার। আমাদের কবি বলেছেন-

 

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে

তব ঘৃণা তারে যেন তৃণ সম দহে।

ঘৃণার আগুন হোক শক্তির আলো। জয় হোকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের।
অজয় দাশগুপ্তকলামিস্ট।

১২ Responses -- “ ক্রিকেট:  জিততে হলে জানতে হবে”

  1. S.M

    কতটুকু খেলা বোঝেন এ তো বোঝাই যায়। লিটন আউট ছিল এইটা বুঝতে সামান্য ক্রিকেট জানলেই হত।।। plz see “Out of his ground Rule”

    Reply
    • Not applicable

      i wanted to include some cricket rules in my opinion. then i realized my text size is already fat. so i excluded that. yes he was out. surprisingly some people in Bangladesh can write 10 pages without any cricket knowledge. this is the reality in Bangladesh. they do not like rules. so teaching rules to any Bangladeshi is useless. just tell them to follow some traffic rules on the road. you will see what happen. if they get a chance to cross the road , the will go in the middle and if they need to go under the tricycle, they will not hesitate to do so.

      Reply
  2. সজল কান্তি

    যে দেশে সবকিছুর মতো BCB সভাপতিও বারবার বিনা প্রতিদন্দ্বীতায় নির্বাচিত হন সে দেশের ক্রিকেট এর চেয়ে ভালো হওয়ার কথা নয়। একজন সাবেক ক্রিকেটারকে কি সভাপতি করা যায় না, নাকি এদেশের সবকিছুতে পলিটিক্স ঢুকাতে হবে!

    Reply
  3. S.M. Ali Mansur

    We are not only week in umpiring and commentary, our cricket board is also too week. Our cricket board can’t protest against ill doings occurred inside and outside of the field. We need somebody like AHM Mostofa Kamal or Saber Hossain Chowdhury. We never seen to protest by current BCB Chairman.

    Reply
      • Not applicable

        Our politicians in crickets are not really skilled politicians to fight for their right compare to indians but they use funnel. On the other hand, our team administrators are not even qualified for a local district level team admin or coach according to their skill levels with rankings but they are holding the national team in their power. Luckily they are representing Bangladesh team. Perhaps If they were born in Australia or New Zealand they could get a chance too their junior local team in district level.

      • সরকার জাবেদ ইকবাল

        Mr. ‘Not Applicable’,

        Your thoughts are very much genuine. Our government should give a fresh thought on reorganising the BCB enabling them to fight against the ‘God Father’ role of Indian cricket board in the world cricket.

  4. Not applicable

    Very funny blog from this blogger. Let me ask you a simple question. Have you ever played any sports in your life? I am sure most people will raise their hands including you. Did you find easy to be the winner in your team? Some of them still may raise their hands. Now let me ask you again, how many of you have been trained by the coaches in life in any sports for any amount of time? If you are selected off course by any coach, you might raise your hand as well, right? Then, you may be better in school but in few schools, you probably nothing because competitions are getting bigger. Then step by step some of them may join in national team. It’s a long procedure and to go there it’s never easy to anyone. In that team, everyone works for their team very closely as they are 24/7 watchdogs no matter what, because they know their responsibilities. Then they present a national team in the stadium to play with their opponents. At this point, we support our national team. I even have seen, many people including children pray to their God or Allah in the hope that their team will find a way to escape from the edge. TV commentator use their innocent emotions right after the tv cameras. As you said Ramiz Raja favors Pakistan team. What that possibly can do to Pakistan team? Did you honestly think about this? Only thing he can do is: to give a smile to the audiences with some small talk, nothing else. I have seen a fat man with a big belly who never played any sports in life can’t move from his living room when his tv is on for sports. And for no reasons he is standing up every now and then to give a big shout. I have seen same guy in a public places such as sports bar or so doing the same thing or ever tougher. Now let’s talk some important things. If you are not qualified to say something that is not in your field, then to remain silent is better. Let the experts to do their job. Once a editor of a news paper was giving his speech that he is a writer that’s why he can write anything and everything. Yes that is true. Writers can write anything and everything but people don’t buy their writings. They buy the trust that you build over the time in people’s mind. Our Bangladesh team came to a position, it’s not easy to win against Bangladesh now however realistically Bangladesh is not in that position yet to win every time they play with any team. When Bangladesh will find at least 10 strong players with good physical fitness , then Bangladesh can search for the best high profile coach in the world. You have seen Chris Gail in West Indies? Whoever select the players for a long term training, they need to be careful that bat is not bigger than the body. I am not discriminating to the small size people. You may think sachin tandulker is a little master. Yes true from over billions people, one little master can easily exist. It can happen but to invest for long term it’s not the best choice at all.. players should get paid well similar to Australian players. To win here and there or even in World Cup means something but not everything. Our team need to be in top 3 in raking. That time Bangladesh will be in top level team in the world. Until then Bangladesh need to keep their T20, ODI and test status.

    Reply
  5. পিংকু

    যে সেক্টর দুইটা অাপনি তুলে অানলেন সত্যি ই তো এই দুইটা তে অামাদের অবসর প্রাপ্ত রা কেউ যেতে চান না। এনামুল হক মনি অার অাতহার অালী খান। এই দুইজন ই অাছেন। মনে হয় বিসিবি কে এটা নিয়ে ভাবা উচিত। তবে অাতহার অালী খান বলছেন যে কথা বলতে ঐ ভাবে পারেন না যেভাবে বমিজ বাজা বলে কারন অাতহার অার বমিজ বাজার পারিবার ঐতিহ্য অার সত্য বলার মানসিকতা তে অনেক তফাৎ। পাকি বমিজ বাজা বরাবর ই তার যত না পাওয়ার যন্ত্রনা মাইক্রোফোন এ ই ফাটায়, অাতহার অালী ভদ্র এবং মার্জিত হওয়ায় লক্ষ্য করবেন অন্যান্য ধারাভাষ্যকার রা কিন্তু বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশ নিয়ে পজিটিভ ই বলেন। অার অামরা যখন ভালো খেলি বুক চিতিয়ে লড়ি তখন বমিজের মতো..াল.. াল কি বললো তাতে খেলার রেজাল্ট এর কোন পরিবর্তন হবে না। শুধু অামাদের দেশের কিছু পাইকা সাপোর্টারস অাছে তাদের মাথায় ঐসব বমিজি কথা ডুকলে ই হলো। এতো নেগেটিভ বলে তারপরো অামাদের দেশে পাইক্কা সাপোর্টারস দের গোবর মাথায় ডুকে না এটা ই বমিজদের সার্থকতা….

    Reply
  6. Md. Mahbubul Haque

    ইন্ডিয়ানরা ক্রিকেটটা কেবল মাঠেই খেলে না। ‘মাঠের বাইরে’ও খুব ভাল খেলে। ভদ্রলোকের খেলাটাকে তারা যথার্থই ‘ভদ্রলোক’ হিসাবে ‘গড়েপিঠে’ নেয় একদম নিজেদের মত করে দু’জায়গাতেই। অত্যন্ত ‘মেধাবী’ জাতি। ‘ক্রিকেট পলিটিক্স’ শব্দদ্বয়ও তাদেরই আবিষ্কার। দূর্জনেরা অবশ্য ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলকে তাদের ‘অনন্য সাধারণ কর্মকান্ডের’ জন্য ভিন্ন নামে ডাকে।

    আমরা ভালই খেলছি। কখনও জিতছি, কখনও হারছি। প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই প্রতিপক্ষকে – যে দলই হোক না কেন, কাঁপিয়ে দিচ্ছি। জেতার ধারাবাহিকতা আসতে একটু হয়তো সময় লাগছে। আমরা ধৈর্য্য ধরছি, দলকে সাপোর্ট করছি। তবে একটি কথা না বললেই নয়। আমাদের ব্যাটসম্যানরা আউট হয়ে চলে আসে আর বিপক্ষ দলের ব্যাটসম্যানকে আউট করতে হয়। এই ‘আউট হওয়া’ আর ‘আউট করা’র পার্থক্যটা তাদের ভালভাবে বুঝতে হবে, আর সেভাবেই নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। আর আমাদের কর্তাব্যক্তিদের বুঝতে হবে ক্রিকেট পলিটিক্স।

    শুভকামনা বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম।

    Reply

Leave a Reply to Shadequr Rahaman Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন--

  • ১. স্বনামে বাংলায় প্রতিক্রিয়া লিখুন।
  • ২. ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
  • ৩. প্রতিক্রিয়ায় ব্যক্তিগত আক্রমণ গৃহীত হবে না।

দরকারি ঘর গুলো চিহ্নিত করা হয়েছে—