Feature Img

Anusha-fএকটা দৈনিক পত্রিকার মাধ্যমে যখন বাউলদের অপমানের এই দুঃখজনক ঘটনা শুনলাম তখন আমার নিজের চোখে পুরো বিষয়টা দেখার ইচ্ছে হয়। বন্ধুদেরকে সঙ্গে নিয়ে ঘটনার পরের দিন বা তার পরের দিন ওখানে যাই।

বাউলদের নির্যাতন করা হয়েছিলো যে মসজিদটিতে সেখানে গেলাম। আমরা যখন গিয়ে পৌঁছাই তখন মাগরিবের আজানের সময়। কিন্তু ইমাম তখন মসজিদে ছিলেন বা আমাদেরকে দেখে জবাব দেওয়ার বিড়ম্বনা এড়ানোর জন্য অন্য কোথাও চলে গেছেন।

এই মসজিদেই বাউলদের চুল, দাড়ি, বাবড়ি দা-কাচি দিয়ে কেটে ফেলা হয়েছিলো। এভাবে কাটতে গিয়ে তাদের উপর শারীরিকভাবে নির্যাতনও করা হয়েছে। এদের একজনকে হাসপাতালে পর্যন্ত যেতে হয়েছিলো। কারণ দা দিয়ে কাটার ফলে ঘাড়ের কাছে কেটে গিয়েছিলো। এক এক জনের চুলের বয়স ছিলো ৪০ বছরের মতো, গুরুর নির্দেশে চুল রাখতে গিয়ে চুল ছিলো জট পাকানো । ফলে জোর করে কাটতে গিয়ে শরীরের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে।

ওখানকার প্রশাসনের লোকজন এবং এমপি জিল্লুর হাকিমের সাথে কথা বলে মনে হয়েছে এটা একটা তুচ্ছ ঘটনা, সারা দেশের মানুষ এটা নিয়ে আন্দোলন করতে পারে বা আমরা ওখানে চলে যাবো–তাঁদের কাছে এটা তেমন বড় কিছু মনে হয় নি। মনে হয়েছে এটা ছোট্ট পরিসরেই সমাধান করার মতো একটা বিষয়।

এই ঘটনায় অপমানিত বাউল-ফকিররা প্রতিবাদ করার কথা চিন্তা করেন। বিশেষ করে মোহাম্মদ ফকিরের সঙ্গে আলাপ করে আমার তাই মনে হয়েছে। আমি কথাগুলো এভাবে বলছি এই কারণে যে আমি এই সাধুদের সাথে যারা জড়িত। আমি তাদের কাছে যাই, তারাও আসেন। তো ঘটনাটা যেদিন ঘটে সেদিন মোহাম্মদ ফকিরের বাড়িতে অতিথি হিসেবে অন্য জায়গা থেকে আমন্ত্রিত হয়ে অন্য সাধুরা এসেছিলেন। পুরো ঘটনাটা তাঁর জন্য খুবই দুঃখজনক এবং অপমানজনক ছিলো।

আমরা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রের কথা বলি, কিন্তু আমাদের সমাজ ধর্মনিরপেক্ষ জায়গায় যেতে পারেনি এখনও। এধরনের হামলা যদি চলতে থাকে তাহলে আমরা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রের অঙ্গিকার কীভাবে রক্ষা করবো?

আমরা যারা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে বিশ্বাস করি তাদের উচিত এ ধরনের ঘটনার বিরুদ্ধে দাঁড়ানো। যতদিন রাষ্ট্র ধর্ম দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবে ততদিন আমরা কেবল বেহেশতের লোভ এবং লাভক্ষতির কথা ভাববো। কিন্তু কর্মের মাধ্যমেই যে আমরা নিজের দেশকে স্বর্গ বানাতে পারি সেটা ভুলে যাই।

আমরা চাই প্রত্যেকে প্রত্যেকের ধর্ম পালন করুক। এখন আপনার ইসলাম আমার ইসলাম থেকে ভিন্ন হতে পারে। তাই বলে আমি আপনাকে হত্যা করতে পারি না বা নির্যাতন করতে পারি না। আপনি কোরান শরিফ পড়ে এক ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি। কারণ মানুষ মাত্রই ভিন্ন। আমরা ভিন্ন হয়েই তো একসঙ্গে থাকতে পারি। জোর করে আমরা কাউকে আমাদের মতো বানাতে পারি না। অন্যের অনন্যতাকে সুন্দর হিসেবে দেখা উচিত। তাহলেই আমরা একসাথে একটা সুন্দর পৃথিবী, সুন্দর দেশ গড়ে তুলতে পারি।

আনুশেহ আনাদিল: ডিজাইনার, সংগীত শিল্পী।

৮৮ Responses -- “সাধু সঙ্ঘে অসাধু হামলা”

  1. গোলাম রাব্বী খান

    আনুশেহ,

    আপনার বক্তব্যের সঙ্গে একমত। তবে কোরানের অর্থ একজন থেকে অন্যজনে ভিন্ন হবে, তেমন সুযোগ নেই।

    এই হামলার ঘটনা এই প্রথমবার নয়, এর আগেও এমনটি হয়েছে। লালন সাঁইজির উপর কি হামলা হয়নি? ধর্ম ব্যবসায়ীরা এর আগেও তাদের পণ্য ধর্মকে বিভিন্নভাবে ব্যবহার করে লাভবান হয়েছে। তবে এখনকার অবস্থা ভিন্ন। বাঙালি মাত্রই অসাম্প্রদায়িক।

    বাউল গান একদিনে গড়ে উঠেনি। তাই এই টুটকা ফুটকা হামলায় কিছু হবে না। আমি এই হামলার নিন্দা ও ঘৃণা জানাই।

    আপনার মতো যারা এই সঙ্গীতের সঙ্গে নিবিরভাবে জড়িয়ে আছেন এবং এর চর্চা অব্যাহত রেখেছেন, তাদেরও দায়িত্ব আছে। আর সেটি হল, শুধু প্রতিবাদ নয়, আমাদের নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।

    Reply
  2. Sabina Ashrafi Keya

    এলেম তালেম পড়েন যারা, খাস তালেবান তারাই হয়, মন দিয়া পর আশল পাঠশালায় ।
    সুপার লাইক আপু ।।।

    Reply
  3. taher

    ইচ্ছামাফিক চিন্তা নিয়া কি ভাল কিছু করা যায় ,অন্যের অনন্যতাকে সুন্দর হিসেবে দেখে গেলে তো বদলে যাওয়া বদলে দেওয়া হবে না ।

    Reply
  4. সাগর

    বাউলদের উপর যে অত্যাচার হয়েছে তা অবশ্যই ঘ্রিন্ন একটি কাজ, এতে কোন সন্দেহ নেই। তবে লেখকের একটি কথাতে আপত্তি আছে। ”আপনি কোরান শরিফ পড়ে এক ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি।”— এই কথাটা মানতে পারলাম না। কারন কোরআন পরে কোন বিষয়ে বুঝতে সমস্যা হলে রাসুল (সঃ) এর হাদিসের সাহায্য নিতে হবে, তার পরেও বিষয়টা পরিষ্কার না হলে ইজমা ( ইসলাম সম্বন্ধে জ্ঞানী, সৎ চরিত্রবান, আল্লাহ্‌র মোমিন বান্দাদের ঐক্যমত্য – কে মেনে নেয়া) মেনে নিতে হবে, এর পরেও সমস্যা থাকলে নিজের বিবেক- বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে- যাকে কিয়াস বলা হয়। এভাবে সৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কোরআন পরলে ইসলামের মৌলিক বিষ্যগুলোতে ভিন্ন ভিন্ন ম্যাসেজ পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। আল্লাহ্‌ কোরআন নাযিল করেছেন মানুষকে সঠিক ম্যাসেজ দেয়ার জন্য যাতে তারা সঠিক ভাবে জীবন পরিচালনা করতে পারে। মানুষকে ভিন্ন ভিন্ন ম্যাসেজ দিয়ে বিভ্রান্ত করা নিশ্চয়ই আল্লাহ্‌র উদ্দেশ্য হতে পারে না, তাই না?

    Reply
    • Mohammed Mohsin

      অনেকেই আপনার গান খুব পছ্ন্দ করে। কিন্ত আপনার কিছু কথায় আমার আপত্তি আছে। তেমনি আপত্তি আছে ওইসব বাউলদের গানে যারা না-জেনে না-বুঝে হাদিস-কোরআনের ভুল ব্যাখ্যা দেয়। নিজেদের বানোয়াট কথার সঙ্গে হাদিস মিশিয়ে মানুষের কাছে জনপ্রিয়্ভাবে উপস্থাপন করে। এটা কোনও সচেতন মুসলমান মানতে পারে না।

      Reply
  5. নবীন

    আমি আপনার গান খুব পছ্ন্দ করি । কিন্ত আপনার কিছু কথায় আমার আপত্তি আছে। তেমনি আপত্তি আছে ঐসব বাউলদের গানে যারা না জেনে না বুঝে হাদিস-কোরআনের ভুল ব্যাখ্যা দেয়। নিজেদের বানোয়াট কথার সাথে হাদিস মিশিয়ে মানুষের কাছে জনপ্রিয়্ভাবে উস্থাপন করে। এটা কোন সচেতন মুসলমান মানতে পারে না।

    Reply
    • Rafique

      কারও যদি আনুশের গান ভালো লাগে আবার বাউল গানে আপত্তি থাকে তবে বুঝতে হবে সে গানের ভাষাই বুঝে না। কোরান-হাদিস তো বোঝার প্রশ্নই আসে না। আর যেটা বুঝে না আসে সেটার ব্যাখ্যা-অপব্যাখ্যা খুঁজতে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ নয়।

      Reply
  6. বিপ্লব রহমান

    [“মানুষ মাত্রই ভিন্ন। আমরা ভিন্ন হয়েই তো একসঙ্গে থাকতে পারি। জোর করে আমরা কাউকে আমাদের মতো বানাতে পারি না। অন্যের অনন্যতাকে সুন্দর হিসেবে দেখা উচিত।”]

    এ ক ম ত। শাবাশ আনুশেহ!

    Reply
  7. Sanaullah Sanu

    আনুশেহ আপু,

    আপনার গান অন্য সবার মতো আমি ও খুব পছন্দ করি।
    কিন্তু তাই বলে আপনার সব কথার সাথে শুধু আমি কেন যারা কুরআন পড়ে তারা কেউ একমত হবে না।

    *//”আপনি কোরান শরিফ পড়ে এক ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি।”//

    যদি কখন ও কুরআন শরীফ অর্থসহ পড়তেন তাহলে একথা বলতে পারতেন না। কারণ আপনার-আমার, আমাদের সবার এবং সারা বিশ্বের সৃস্টিকর্তা একজনই। আর কুরবান শরীফ সমগ্র জাতি সমগ্র মুসলিমদের জন্য একটি এবং একটি ভাষায়-ই নাযিল হইছে। আপনার বা যারা বাউল সঙ্গীত শিল্পী তাদের জন্য আলাদা ভাবে কুরআন নাযিল হয়নি যে আমাদের কুরআন আর আপনাদের কুরআন এর অর্থ ভিন্ন হবে বা আপনি ভিন্ন অর্থ পাবেন। সারা পৃথিবীর কুরআন এক, অর্থ-ম্যাসাজ এক।

    Reply
    • Kallu Miah

      …. কুরআন শরীফ কেবল মুসলিমদের জন্য নাযিল হয়েছে এ তথ্য বস্তুনিষ্ঠ নয়। কুরআন শরীফ সমগ্র মানবজাতির জন্য মুক্তির সনদ হিসেবে নাযিল হয়েছে। মহাপবিত্র এ গ্রন্থ থেকে কোন বিষয়েই দুই ধরনের মেসেজ পাওয়ার কোনই অবকাশ নেই। অনুগ্রহ করে কুরআন শরীফ পড়ুন, বুঝতে চেষ্টা করুন, মহান আল্লাহ তাআলা আমাদের কুরআন শরীফ বোঝার ক্ষমতা প্রদান করবেন।

      Reply
  8. অপু_অপু

    আনুশেহ চমৎকার লিখেছেন। আমাদের চোখ খুলে দিয়েছেন। আরো লেখা চাই। আমার মনে হয় ধর্ম থেকেই অনেক উগ্রতার জন্ম। তর্ক হোক, যুক্তি হোক – যুক্তি তর্কেই বিকাশ !

    Reply
  9. siam

    আমি আনুশের গান পছন্দ করি। কিন্তু তার মানেএই না যে আমি তার ভুল ধারণার প্রতিবাদ করব না। বাউলদের নিয়ে আপুদের এত মাথা ব্যাথা! কিন্তু রাস্তায় যখন পিটিয়ে ইসলামপন্থীদের মেরে ফেলা হয় তখন তাদের দরদ কই থাকে ? বাউলদের সাথে কিছুদিন থাকলে জানা যাবে তাদের অজাচার কাহিনী। বাউলরা সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন ১টা গ্রুপ ছিল। আজ সমাজবিকৃতকারীরা তাদেরকে সমাজে ফিরিয়ে এনে জাতিকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে।

    আগামী কিছুদিন পর দেখবেন তারা হিজড়াদের মতো রাস্তায় রাস্তায় চাঁদাবাজি করছে।

    আর আনুশেহ আপু, ইসলামকে একেক রকম ভাববার কোন সুযোগ আল্লাহ দেন নাই। প্লিজ, ইসলাম নিয়ে কিচুটা পড়ালেখা করেন। লালনকে নিয়ে যতখানি ভাবেন তার কিছুটা যদি রাসুলকে নিয়ে ভাবেন তাহলে দুনিয়াকে স্বর্গ না বানিয়ে কবরকে জান্নাত বানাতে ব্যস্ত হয়ে যেতেন।

    আল্লাহ আপনাকে এবং আমাকে সবাইকে হেদায়াত করুন।

    আর আরেকটি কথা, শিয়া, সুন্নি, জামাতি, এসব কোন দলাদলি না, এটা পরামর্শ, যেমন, জ্বর হলে ১জন ডাক্তার নাপা দেয়, ১জন ডাক্তার এইস দেয়, আরেকজন দেয় পারাসিটামল, সব এক এ গ্রুপের ওষুধ। শিয়া, সুন্নি এসব আমাদের পরিচয় না, আমাদের পরিচয় হল আমরা মুসলিম।

    Reply
    • মুহাম্মদ

      আচ্ছা ভাই আমার একটা প্রশ্নের জবাব দিন তো “একজন হুজুরকে ধরে দাড়ি কেটে দেওয়া হল আর তার মাথা নেড়া করে দেওয়া হল ।” তখন আপনি কি করবেন?”

      Reply
    • asad

      “একজন হুজুরকে ধরে দাড়ি কেটে দেওয়া হল আর তার মাথা নেড়া করে দেওয়া হল ।” তখন আপনি কি করবেন?”

      Reply
  10. যাযাবর

    ভাল লাগল পরে,সেই সাথে তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি বাউল নিরযাতনের।

    Reply
  11. Ali adel

    Baulra fasek. Tader k jor kore Aain manano jai. Tobe Islamic government thaklei sheta shomvob. Aain nijer ba shomajer hate neoa jabe na.sobtuku janle bauliana ghrina korar e bishoy.

    Reply
  12. কাইমুল

    পৃথিবীতে হাজারো সংস্কৃতি,শত কোটি মানুষ, অসংখ্য ধর্ম, অসংখ্য মত ও পথ,বৈচিত্র্যপূর্ণ জীবন বিদ্যমান। জোর করে সব সংস্কৃতি, সব মানুষ, সব আচার অনুষ্ঠান, রীতি-নীতি ও প্রথাকে এক করা যায় না। ঐতিহাসিক, ভৌগোলিক, আবহাওয়া, জলবায়ু, অর্থনীতি,পরম্পরা এবং আরো অসংখ্য কারণে মানুষের আকৃতি,গায়ের রঙ,ভাষা,জীবন-যাপন,ধর্ম এবং অন্যান্য কর্মকাণ্ড আলাদা। এটা হলো পৃথিবীর বাস্তবতা, মানুষের বাস্তবতা। এই বাস্তবতাকে অস্বীকার করা যায় না, করার সুযোগ নেই। বাউল হচ্ছে আমাদের দেশের একটি বহু পুরাতন সংস্কৃতি,একটি ধারা। বাউল/বাউলিয়ানা আমাদের সংস্কৃতির অপরিহার্য উপাদান। এখন যদি কেউ বলে কবি নির্মলেন্দু গুন, ব্যাটা দাঁড়ি-চুল কাটে না, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা হিন্দু রবীন্দ্রনাথের গান গায়, খ্রিস্টান বিল গেটসের মাইক্রোসফট এর পণ্য (সফটওয়ার) ব্যবহার করা যাবে না, খ্রিস্টান আমেরিকার আবিস্কৃত এবং পরিবেশিত ইন্টারনেট ব্যবহার করবো না..তাহলে কেমন হয়??..যে লোকগুলো ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে বাউলদের দাঁড়ি কেটেছে তারা কিন্তু হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ অন্যদের আবিস্কৃত জিনিস দিয়েই জীবন যাপন করছে। চুল-দাঁড়ি কাটার ক্ষেত্রে যারা নেতৃত্ব দিয়েছে, তারা কারা? ওরা বাঙালি জাতির কলংক,ওরা সভ্যতার কিট,ওরা মানব জাতির সামনে অগ্রসর হওয়ার বিরোধী। বাউল বাঙালি সংস্কৃতির অলংকার। যারা চুল-দাঁড়ি কেটেছে, তাদের কথা আপাতত বাদ দিলাম। কিন্তু আনুশেহ-এর লেখার প্রতিক্রিয়াগুলো পড়ে খুবই মর্মাহত হলাম। অন্যদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলছি, আমাদের তথাকথিত শিক্ষিতরা কত বেশি অশিক্ষিত,মুর্খ তা…. কিছু প্রতিক্রিয়া পড়ে হাড়ে হাড়ে বুঝা গেলো। আনুশেহ কত সুন্দর করে ছোট পরিসরে বিষয়টা তুলে ধরেছেন। আর অসংস্কৃত তথাকথিত কিছু অপশিক্ষিত গাড়ল কি মন্তব্যই না করেছে। শুদ্ধ উচ্চারণে কথা বলা, পরিপাটি জামা-কাপড় পড়া, সুন্দর আবাসন ব্যবহার করলেই মানুষ হওয়া যায় না, বড়জোড় জন্মগতভাবে মানুষ প্রজাতির প্রাণী। মানুষ হতে হলে মানুষের চেতনা থাকতে হয়, মানবিক গুন থাকতে হয়। এখানকার কিছু প্রতিক্রিয়া এবং আশপাশের অনেক মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি, মূল্যবোধ, চিন্তার ক্ষমতা দেখে এটা স্পষ্ট হয়েছে, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় বড় রকমের গলদ আছে। দক্ষ কেরানী আর চালাক শিয়াল হয়ে অন্যকে ঠকানো, নিজের স্বার্থ কড়ায়গন্ডায় সংরক্ষণ করার দক্ষতা তৈরি করে আমাদের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থা।

    Reply
  13. গোলাম রব্বানী

    কোথাকার কোন মৌলবি বাউলদের চুল, দাড়ি কেটে দিয়েছে সেজন্য ইসলামকে দোষারোপ করা ঠিক নয়। ইসলাম ধর্মের কোথাও এমন আচরণের পক্ষে সমর্থন নেই। একটি ধর্মের অনুসারীদের সবাই ওই ধর্মের আদর্শ নয়। তাই কোনো ব্যক্তির আচরণ দিয়ে কোনো ধর্মকে মূল্যায়ন করবেন না। যারা বাউলদের চুল, দাড়ি কেটে দিয়েছে তারা অবশ্যই অন্যায় করেছে। শুধু বাউল নয়, সমাজের যেকোনো মানুষের অধিকারের পক্ষে আপনি লিখতে পারেন। কিন্তু সে জন্য ঢালাওভাবে ইসলামকে সহজ শিকারে পরিণত করবেন না। তাতে আপনার মতামতের প্রতিও শ্রদ্ধা বাড়বে।
    ধন্যবাদ।

    Reply
    • ashraful

      বাউলদের চুল কিন্তু মোল্লা বা হুজুররা ইসলামের নামে কাটেনি। কাটা হয়েছিল স্থানীয় এক আওয়ামী লীগের নেতার নির্দশে।
      বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার। এইটা একটা স্থানীয় সামাজিক ঝগড়াঝাটির বিষয় ছিল। সব কিছুর মধ্যে ইসলামকে টেনে আনার প্রবণতা পরিহার করা উচিৎ।

      Reply
      • ATIQ

        বাউলদের চুল কিন্তু মোল্লা বা হুজুররা ইসলামের নামে কাটেনি। কাটা হয়েছিল স্থানীয় এক আওয়ামী লীগের নেতার নির্দশে।
        বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার। এইটা একটা স্থানীয় সামাজিক ঝগড়াঝাটির বিষয় ছিল। সব কিছুর মধ্যে ইসলামকে টেনে আনার প্রবণতা পরিহার করা উচিৎ।

    • azad likhon

      ইসলামকে কেন দোষ দিবে? দোষ তো ইসলামের নয়। ইসলাম শান্তির ধর্ম। কিন্তু যারা ইসলামকে নিজের সম্পদ হিসেবে দাবি করছেন, তারা ইসলামকে শান্তির ধর্ম হিসেবে থাকতে দিচ্ছেন না, সন্ত্রাসবাদে পরিণত করছেন।

      তাদের কিছু বললে সেটা ধর্মদ্রোহিতা হয় কেন?

      Reply
  14. S Ahmed

    আমরা চাই প্রত্যেকে প্রত্যেকের ধর্ম পালন করুক। কেউ শতভাগ মুসলমান না কত ভাগ মুসলমান তা আল্লাহ জানেন, মুসলমান তার বিচার করে না, দোয়া করে। খুব ভালভাবে মুসলিম ধর্ম মানতে চাইলে আমরা মুসলিমরা নবীজির স্বভাব সময়-কাল-পাত্র ভেদে অনুসরন করতে পারি। নবীজির স্বভাব-চরিত্র সবাই পছন্দ করত। এমন কি ভিন্ন ধর্ম পালনকারিসহ আমার স্বভাব কজন পছন্দ করে, তা মনে রাখা দরকার।

    Reply
  15. ননতু

    মূলতঃ আমরা যথন নখহীন আহত বাঘ হয়ে যাই ঠিক তথনই ধর্মকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করি। এথানে কি এমন কেউ আছেন যে, বলুন কোন ধর্মে মানুষের উপর নির্যাতনের কথা বলা আছে? বরং সব ধর্মেই আছে “সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই”। মানবতা যার ঠিক নেই সে নখহীন (হিংস্র!)পশুর চেয়েও অধম।

    Reply
  16. Probashi

    চুল দাঁড়ি কেটে দিয়ে ভালোই করেছে । বাউল হতে হলে জটাধারী হবে এমন কথা নেই । চুল কাটার সময় ব্যাথা দেয়া ঠিক হয় নি ।

    Reply
  17. faiham

    Still the issue of RELIGION, is discussed with great importance in this discussion which is pathetic.
    Showing ample respect to everybody, can we think again about the religious issues?

    Reply
  18. Abir Hossain

    Ms Anusheh Anadil, Pls take more time before writing something. You are protesting against a matter and attacking other group at the same time. Are you not doing the same thing? You will/not follow the religion, its upto you but pls dont make a foul comment about it. Except that few comments on religious matter, your writing is good.

    Reply
  19. Nhasan

    আমি সবার সাখে একমত যে মানুষের স্বাধীনতায়
    ‌হস্তক্ষেপ কাম্য নয়। তবে বাউলিয়ানা আমার
    পছন্দ নয়।

    Reply
    • Maruf Rahman

      To Mr. Hasan
      This is exactly the point. You have every right to dislike ‘bauliapona’. But you DO NOT have any right to FORCE others to follow you or go by your likings/dislikings. Respect is the key. More than half of world population is not muslim, they follow some other religions. Does it give Islam an inferior position or status? One can earn ‘respect’ by respecting others and their views. How does some morons glorify the religion by cutting hair/beard of a few ‘bauls’ who are busy with their own life-style!

      Thanks

      Reply
  20. রাসেল আহাম্মেদ

    লেখিকার সাথে সহমত পোষন করছি । আমাদের সমাজের বেশির ভাগ মানুষই ধর্ম সম্পর্কে না জেনেই তা অনুসরন করে , বেশির ভাগেরই বাবা মুসলমান তাই সেও মুসলমান । অনেকেই তার জানা ব্যাখার বাইরে ইসলামের বা পবিত্র কোরানের অন্য কোন ব্যাখা থাকতে পারে তা মানতে প্রস্তুত নয় । ইসলাম সবার জন্য যদি একই হবে তাহলে ইসলামের মাঝে এত দলাদলি কেন ? কেউ আহলে সুন্নত , কেউ জামাত , কেউ সুন্নি , কেউ শিয়া । এদের মাঝে অনেকেই যে মুয়াবিয়ার পুত্র ইয়াজিদের মত আচরন করছে তা নিজেরাই বুঝছেন না । এজন্যই ফকির লালন সাই বহু পূর্বেই বলে গেছেন , ” কে বোঝে মাওলার আলেকবাজি ,করছে রে কোরানের মানে যা আসে যার মনে বুঝি….একই কোরান পড়াশুনা , কেউ মৌলভী কেউ মওলানা…” । মাওলা সবাইকে বোঝার মত জ্ঞান দিক , এই কামনা করি ।

    Reply
      • রাসেল আহাম্মেদ

        মিষ্টার মোস্তাফিজ , কোন মানুষই সবজানে না । তবে সবারই জানার আগ্রহ ও মানসিকতা থাকা উচিত । আপনার যে তার অভাব আছে তা আপনার মন্তব্য পড়েই বোঝা যাচ্ছে । দয়া করে নিজের মতামত ও অবস্থান পরিস্কার করে বলুন , তারপর অন্যকে প্রশ্ন করুন ।

  21. জয়শ্রী সরকার

    আমি আনুশেহর লেখাটা পড়লাম এবং সেই সাথে পড়লাম সকলের প্রতিক্রিয়া। লেখাটি পড়ে যেমন হয়েছে সেটাও । যারা লেখাটি পড়ে তীব্র প্রতিবাদ জাতীয় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তাদের ধর্মানুভূতির প্রতি আঘাত লেগেছে এমন একটা ভাব ঝেড়েছেন তাদের ভাষাশৈলী আমাকে নিশ্চিত করতে সাহায্য করেছে এই ধারনা পোষণ করতে যে তারা ধর্মের প্রতি তাদের দায়িত্বটুকু পালন করেন লোক দেখানোর জন্য । আর তারা যদি ঐ ঘটনায় বিব্রত হয়ে কারো ধর্মানুভূতিতে আঘাত না দিয়ে ঐ ঘটনায় আহত হয়ে কিছু লিখতেই পারেন তো বসে আছেন কেন ? আমার মনে হয় লেখিকা কী বলেছেন তা নিয়ে মাথা না খাটিয়ে কী বলতে চাইছেন সেটাই মনযোগ দিয়ে ভাবা উচিৎ । বাংলার বাউল সম্প্রদায় বাংলা সংস্কৃতির প্রাণ, তাদের অসম্মান করাটা ভাল কোন ফলাফল বয়ে আনতে পারে না । পান থেকে চুন খসলেই যাদের ধর্মনুভূতিতে আঘাত লাগে, তারা একটুখানি সাবধান থাকার চেষ্টা করবেন আশা করি ।

    Reply
  22. Sharifuddin Mahmud

    ….এই হুজুরের চুল দাড়ি ফেলে, ব্রু ফেলে …….. সারা গ্রাম হাটতে দেওয়া উচতি…….

    Reply
  23. Ami musalman

    বাউলদের সাথে এই আচরণ যে ইমাম করেছেন নিশ্চয় তিনি অধিক পড়াশোনা করেন নি। ইসলামের সার্বিক জ্ঞান থাকলে তিনি এই কাজ করতেন না। এর জন্য দায়ী রাজবাড়ীর ঐ মসজিদ সংলগ্ন এলাকাবাসী। তারা অর্থ খরচ করে যোগ্য ইমাম রাখেন নি। তার সাথে একথাও সত্য অনেকে বাউলদের ইসলামী বুজুর্গ মনে করেন, কিন্তু তাদের জীবনাচারের সাথে ইসলামের কোন সম্পর্ক নেই। লেখিকার (নাকি লেখক?) জ্ঞাতার্থে জানাই: ইসলাম যার যার তার তার ম্যাসেজ মতো চলার ধর্ম নয়। আপনারা যারা কলম নিয়ে যুদ্ধ করতে চান তাদের নিয়ে এটা একটা বড় সমস্যা যে আপনারা কুরআন ও হাদীস সম্পর্কে একেবারে অজ্ঞ। ইসলাম সম্পর্কে আপনাদের এ উদাসীনতা খুবই লজ্জাজনক। ইসলাম সম্বন্ধে জানেন না, অথচ তা নিয়ে মন্তব্য করতে একটুও দ্বিধা করেন না। ইসলামের আদর্শিক দিক ফুটিয়ে তুলুন। ইসলামকে বিরূপভাবে উপস্থাপন করবেন না। কোন মুসলমানের অজ্ঞতার জন্য ইসলাম দায়ী হবে কেন?

    Reply
  24. শরিফ

    এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। তবে বাউলদের ধর্মকে ইসলামের সাথে যারা মিশাতে চেষ্টা করে এই ধরনের বাজে ঘটনার জন্য মূলত তারা দায়ী। এটা করা থেকে বিরত থাকলে আমার ধারনা এই ধরনের বাজে ঘটনা কমে যাবে।

    Reply
  25. Rahul

    ”… এখন আপনার ইসলাম আমার ইসলাম থেকে ভিন্ন হতে পারে। তাই বলে আমি আপনাকে হত্যা করতে পারি না বা নির্যাতন করতে পারি না। আপনি কোরান শরিফ পড়ে এক ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি। কারণ মানুষ মাত্রই ভিন্ন।” আনুশেহ আপনাকে বলছি- শুরুতেই উদ্ধৃতাংশের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি আমি। ইসলাম সবার জন্যই এক। ইসলাম হত্যা বা নির্যাতন সমর্থন করে না, এটা ঠিক তথ্য দিয়েছেন। কিন্তু তার মানে এই না যে, এ কথার আড়ালে আপনি আপনার একটা মতামত চামে দিয়ে দিবেন (”…এখন আপনার ইসলাম আমার ইসলাম থেকে ভিন্ন হতে পারে।”)। ইসলামকে আপনি বা আমি কতটুকু সঠিকভাবে মানছি এটা প্রত্যেকের নিজের ওপর। আর, কোরআন শরীফ পড়ে দুই রকম ম্যাসেজ (!) পাওয়ার কথা বলছেন। ঠিকভাবে পড়েন তো কোরআন শরীফ? কথাগুলো শুনে আমাকে মৌলবাদী ভাবলেও ভাবতে পারেন, সেটা আপনার ব্যাপার। কিন্তু মতামতটা এই কারণে দেয়া, আপনার মত সেলিব্রেটির লেখা একটা কলামে এ ধরণের বিভ্রান্তিমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রেণোদিত বক্তব্য কাম্য নয়। কারণ আপনাদের বক্তব্যে প্রভাবান্বিত হয় এ প্রজন্ম। তাদেরকে মিস গাইড করাটা কি ঠিক হবে? সবশেষ, আপনার সাথে আবারো তীব্র প্রতিবাদ জানা্চ্ছি, বাউলদের ওপর নির্যাতনের ঘটনার। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করি, ওইসব মুসলমান নামধারী নির্যাতনকারীদের।

    Reply
    • রাগ ইমন

      জনাব রাহুল,
      নিজেকে মৌলবাদী ভেবে দুঃখ কষ্ট পাবেন না। মৌলবাদী হতে গেলে যেই মৌলিক জ্ঞান লাগে সেইটাও আপনার নাই। না ইসলাম সম্পর্কে, না মানবিক বোধ সম্পর্কে। সুতরাং, নির্দ্বিধায় নিজেকে কুশিক্ষিতের দলে ফেলে দিয়ে আত্মপ্রসাদ লাভ করুন।
      আনুশেহ, ধন্যবাদ বাউলদের সমর্থনে এগিয়ে আসার জন্য। বাউলরা কোন ধর্ম পালন করেন, তা নিয়ে আমার বিন্দুমাত্র মাথা ব্যথা নেই। বাড়ির অতিথিকে ডেকে নিয়ে অপমান করাটা ধর্ম তো অনেক পরের কথা, বাঙালি কিংবা ইসলামী কোন সংস্কৃতিই সমর্থন করে না, এইটা পশুত্ব, এইটা বর্বরতা, এইটা নীচ, হীন, ইতরদের আচরণ।
      যারা এইটাকে “ইসলামী” রঙ মাখিয়ে পানি ঘোলা করার চেষ্টা করছে, তারা হয়ত ভেবেছে বাংলাদেশের সকলেই মুর্খ। কিন্তু আমরা সেইটা নই। আমরা বাঙালি ঐতিহ্য ভুলুনি, যে ঐতিহ্য বলে অতিথি মাত্রেই লক্ষ্মী। আমরা কুরান-হাদীস এর শিক্ষাও ভুলে যাইনি যেখানে বলা হয়েছে ‘তুমি খাবার রান্না করার সময় একটু বেশি করে রান্না কর তোমার অতিথির জন্য, যে হয়ত হঠাৎ উপস্থিত হতে পারে।’ নিঃসন্দেহে, যারা এই ইতর, বর্বর আচরণের মধ্যে ইসলাম খুঁজবে, তাদের জানা উচিত আল্লাহ বা আল্লাহ্র রাসূল কোথাও এই নির্দেশ দেন নাই, যে যারা ইসলাম মানে না, তাদের ধরে ধরে চুল দাঁড়ি কেটে দাও। কোথাও এমন নির্দেশ দেওয়া হয় নাই যে ইসলামের প্রচার, প্রসার বাড়ানোর জন্য জোর জবরদস্তি কিংবা শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। বরং বলা হয়েছে “তোমাদের আচরণ দিয়ে তাদের মুগ্ধ করো”।
      বাংলা জাতির ইতিহাস কয়েক হাজার বছরের পুরনো। আমরা সারা বিশ্বে অতিথিপরায়ন হিসেবে পরিচিত। আমাদের ঐতিহ্য মানবিক ও দয়ালু রীতিনীতির। আমাদের সংস্কৃতি মানবতার গৌরবধারী। সবচেয়ে বড় কথা, বাংলাদেশের মুসলমান মানুষেরা ইসলামের শান্তিপূর্ণ, মানবিক ও বিবেচক রূপকে গ্রহন করেছে। আরবীতে কোরান পড়ার ফলে ইসলাম যদি জনাব “রাহুল” এর মত আপনার নিজের মাথাতেও না ঢুকে থাকে, তাহলে বাংলায় কোরান হাদীস পড়ুন। যেই ধর্মের গরবে আপনার হাতে শান্তির পতাকা না উঠে দা-কাঁচি উঠে এসেছে, সেই ধর্ম আসলেই কী নির্দেশ দেয়, সেইটা নিজে পড়ে বুঝুন। নইলে ইসলামের নামে আপনি হবেন সবচেয়ে বড় মিথ্যাবাদী- ইসলাম সম্পর্কে মিথ্যা প্রচারের দায়ে সবচেয়ে বড় গুনাহগার।
      আল্লাহ সকলকে জ্ঞান অর্জনের তৌফিক দান করুন, হেদায়েত করুন, সত্যিকার ধর্ম পালনের বুদ্ধি ও শক্তি দিন। আমিন।

      Reply
      • Rahul

        জনাব রাগ,
        রাগ নিবেন না। পুরা রাগ নিয়েই তো বিশাল প্রতিক্রিয়া জানালেন। বলা হয়ে থাকে, রাগী মানুষের রাগ না কমা পর্যন্ত আলাপ বন্ধ রাখাই শ্রেয়।

      • রাগ ইমন

        জনাব রাহুল,

        আপনার জন্ম কি বাংলাদেশের বাইরে হয়েছে? তাই হবে মনে হয়। নইলে বাংগালীর সন্তান কেন জানবে না বঙ্গদেশে “উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত” বলে একটা ব্যাপার আছে যাতে ভৈরব, বিলাবল, মল্লার এর মত ইমন-ও একটা রাগ।

        আপনি বরং ইসলাম, বাংলাদেশ, বাংগালী সংস্কৃতি নিয়ে একটু পড়ালেখা করেন। নইলে, আপনি কারো কথাই বুঝবেন না।

        আপনি কোরান শরিফ পড়ে এক ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি। কারণ মানুষ মাত্রই ভিন্ন।—- এই কথাটা কোন পটভূমিতে বলা হয়েছে সেইটা বুঝতে হলে প্রাপ্তমনস্ক হওয়া প্রয়োজন। আপনার জন্য একটা ভিডিও লিংক দিলাম- দেখেন কিভাবে কুরানের অর্থ বদলে যায়- বা কিভাবে উদ্দেশ্যমূলক ভাবে বদলানো হয়- কারণ কুরান “প্রচ্ছন্ন” এবং “গভীর” এবং “দ্ব্যর্থক” – “চিন্তাশীলদের জন্য” নির্দেশিত। http://www.youtube.com/watch?v=3Y2Or0LlO6g

    • Noyon

      Rahul, ami apnar protikriyar tibro protibad janachhi..karon apni onner motamoter proti srodhashil na. Jar jar bhabna, takei bhabte din aar ke kake dekhe provabannito hobe sheta tar upor e chhere den. apnar bhabna ta shobar upor chapiye dewatao ki thik??

      Reply
      • Khalid Hossain

        আপনার লেখা পুরোটা বুঝতে বেশ কষ্ট হয়েছে।
        অনুগ্রহ করে বাংলায় লিখুন, আর যদি ইংরেজিতে লিখতেই হয় তবে সম্পূর্ণ ইংরেজিতে লিখুন। বাংলায় লেখার জন্য অভ্র কিবোর্ড ডাউনলোড করে তাতে উল্লেখিত নির্দেশনা অনুযায়ী সেটআপ করে নিন।

      • Rahul

        নয়ন,
        আপনি বলছেন, আমি অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না! তবে আমার বক্তব্য শুনুন, কলাম প্রকাশের মাধ্যমে আনুশেহ তার যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা সবার উদ্দেশ্যে। আপনার ভাবনা যখন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়, তখন তা আর আপনার থাকে না। আর আপনি যদি হন সেলিব্রেটি তাহলে তো কথাই নেই। আর একজন সেলিব্রেটির কি উচিত না, সঠিক তথ্য সরবরাহ করা? আর ‌‌‌’প্রভাবান্বিত’ হওয়ার কথা বলছেন, আপনি নিজেই তো বড় উদাহরণ।

    • Alpha Kapalik

      ভাইজন, ভালই ফেরকা ধরছেন। লেখকের মতকে ‘বিভ্রান্তিমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলছেন, ঠিকই বলছেন মনে হয়। তার লেখার একটা উদ্দেশ্য অবশ্যই আছে, আপনার মন্তব্যের মতো তা বেহুদা না। আর আপনি বিভ্রান্ত হয়েছেন তাতে লেখকের দায় কতটুকু?

      Reply
      • Rahul

        আলফা,
        লেখকের লেখার উদ্দেশ্য যেটা, তার সাথে আমি একমত। এবং ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। কিন্তু আমার আপত্তি, লেখক যে উদ্দেশ্য নিয়ে লিখছেন, তাকে পাশ কাটিয়ে তিনি অন্য আরেকটি বিষয়ে বিতর্ক তৈরির অপচেষ্টা করছেন। লেখকের কাজ মানুষকে সঠিক তথ্য প্রদান করে, সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়তা করা। একটা ন্যাক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে, আরেকটি বিষয়ে নিজেকে বিতর্কিত করা নয়। এবার আপনাকে বলছি, আপনি তো ‘হুদা’ ‘হুদা’- ই বেহুদা একটা মতামত পড়লেন।

  26. মিজান মল্লিক

    কারো বাড়ি থেকে তাঁরই আমন্ত্রিত অতিথিদের ধরে মসজিদে নিয়ে গিয়ে চুল ও গোঁফ কেটে দেওয়ার ঘটনা কোনো বিচারেই তুচ্ছ হতে পারে না। এ ঘটনা বর্বর। তাতে সন্দেহ কী।
    এ অপমান শুধু মোহাম্মদ ফকিরের নয়, আমাদের, গোটা সমাজের ও জাতির।
    এখানে বলে রাখি, বাউল-সাধকদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে। যদিও তাঁদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে খুব ভালো একটা জানা নেই আমার।
    নির্বিরোধ এই মানুষগুলো তাঁদের নিজ নিজ মত ও পথে চলার অধিকার নির্বিঘ্নে ভোগ করুন, এটা আমি কামনা করি।
    ‌‌ ‘আমরা চাই প্রত্যেকে প্রত্যেকের ধর্ম পালন করুক’ আনুশেহ আনাদিলের এই চাওয়ার সঙ্গে আমিও সহমত পোষণ করি। সেই সঙ্গে মনের সন্দেহ দূর করতে লেখিকার কাছে জানতে চাই, বাউল সাধুরা কি তখন সঙ্গ করছিলেন নাকি সংঘ? গণমাধ্যমের খবরে’সাধুসঙ্গ’ উল্লেখ করা হয়েছে। বেশ খটকা লাগছে। ‌সাধুসঙ্গ’ নাকি ‌’সাধুসংঘ’? খোলাশা করবেন, আশা করি।

    Reply
  27. মশিউর রহমান খান

    বাউলদের জীবনাচরণে হাত দেয়া একেবারেই সমীচিন নয় বলে মনে করি। বাংলাদেশের বাউলদের মনে যে উত্তাপ, হৃদয়ে যে প্রেম তা পৃথিবীর খুব কম দেশেই লক্ষ্য করা যায়। তাই আমরা আমাদের এই বাউল সাধকদের এভাবে গলা টিপে কন্ঠ রোধ করতে পারি না। সারা দুনিয়ার কোনও মানুষ তা মানতে পারে না। মানতে দেয়া উচিত নয়। এই অপমান শুধু বাউলদের নয় বলে মনে হচ্ছে আমার কাছে। এই অপমান আমার, আমার দেশের সরকারের দেশের সকল মানুষের।

    Reply
  28. Tajalli

    Actualy, BAUL culture is not a culture of ISLAM, but its a strong local culture of Bangladesh or Bangali. If we see this in a religious view, it should not be accepted …… but whenever we think as a BANGALI we feel proud of those BOUL songs. But none should describe the BAUL culture as Islamic Culture. Some are singing Rabindra sangit, Some Nazrul, some folk, some rock…..BAUL song is nothing but a singing style as like.

    Reply
      • Alpha Kapalik

        “BAUL song is nothing but a singing style as like.” এতো দেখি বাউলগানের চুলদাড়ি কেটে দিলেন দাদা! বেহুদা বড়ই বেহুদা!

    • Noyon

      Jodi apnar kotha dhoreo nei je Baul ra “islamic culture” er part na, tai bolei ki “it should not be accepted?” tar mane ki sob hindu bodhho, christan dhore dhore tupi aar borka porate hobe, or echha moto chhul dari kete dite hobe….ota mone hoi accepted hobe apnar mote??.Islam borbor der dhormo na..borbor ra Islam ke issue kore faida lote….thnx to Anusheh for the article and want to congratulate for not being silent about the issue..thnx

      Reply
      • Tajalli

        Nah !!! ami ta bolini…. Apnar motamot deke mone hosse, ami BAUL der dari-chul katake support koresi….. Sorry boss ! Ami hujurder ei msg dite cheyesi je… “BAUL kono ISLAMIC culture noi”…tai tader nejeder moto thakte din. Rasul(SM) jor kore kaoke Islamer pothe anen ni…..

    • শিবলু চৌধূরী

      Mr. Tajalli, BAUL culture is not a culture of ISLAM. – জেনেশুনে বলছেন তো? যদি বাউলিায়ার আর এক শব্দ Sufism হয়? বলতে পারেন এভাবে,, ”BAUL is not a complete life style whatever it’s a great parts of Islam if a BAUL keep his mind to all mighty ALLAH.
      আর যদি বাঙালি হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জানা উচিত বাউল গানই সমগ্র বাংলা সংগীতের জনক। কাঠমোল্লারা যখন তাল ও সঙ্গীঁতকে নাজায়েজ সাব্যস্ত করেছিল তখন এই বাউলরাই একে এদেশে টিকিয়ে রেখেছিল।
      ভেবে দেখুন ওরা সঙ্গীঁত জগতের সেই স্তম্ভ যা মাটির নিচে কর্দমাক্ত অবস্থায় থাকে যা কেউ উপভোগ করে না। কিন্তু তার ওপর দাঁড়িয়ে থাকে সেই সব সেলিব্রেটিরা…………….

      Reply
      • azad likhon

        জনাব শিবলু,

        বাউলিয়ার এক প্রতিশব্দ যদি ‘সুফিসম’ হয়, তবে আরেক প্রতিশব্দ ‘নাথিসম’ও হয়। বাউল দর্শন ইসলাম থেকে আসেনি। দয়া করে বাউল দর্শন ও সুফিসমকে এক করবেন না।

        বাউল বাংলার নিজস্ব দর্শন…

    • Shuvro Meghe

      দুঃখিত আপু, এই ঘটনা জামাতিরা ঘটায় নি। “dhormo niropekkho” awami legue er neta ra ghotiyeche. newspaper gulo pore dekhben. sharadin amini chora ke galagali kore ora nijera aminir cheo joghonno kaz koreche.

      Reply
      • Evana

        thik.kothay kothay bina promane islam ponthider dosh deyata amdr kichu kichu manushr ovvashe porinoto hoyeche.

  29. Rana

    The holy Quran does not have different meaning so there is no option to understand differently. It is a guide of whole humanity. We are trying to segment Islam and that is where we fail every time. Every one should allow practicing their religion. Islam does not say to hit anyone to bring him or her toward Islam.

    Thanks
    Rana

    Reply
    • yousef

      if there is no different meaning then tell me why there are different interpretation of islam, shia and sunni. apart from these basics there are different meaning of Quran and it is not against islam. Shia people interpret that Imam should be from Ahal- Al Baiat, and it is mentioned in Quran, but sunni has opposite view.

      Reply
    • Khalid Hossain

      আমি জানিনা আরবী কোরআন কে কতোটা বুঝেন, তবে আমি পড়তে পারলেও অর্থ কিছুই বুঝি না। এমনকি বাংলাও বুঝতে অনেক কষ্ট হয়। আপনাদের কথায় মনে হচ্ছে আপনারা মোটামুটি ভালই বুঝেন। তা বুঝলে অনেক ভাল। তবে যে সম্পর্কে লেখা হয়েছে শুধু সেই সম্পর্কে লিখলে ভাল হয় না? আমরা মুসলমানরা এই বিতর্কে থাকি আর সে জন্যই ইহুদী নাসারারা চাঁদে যায় এবং সবধরনের আবিষ্কারের কৃতিত্ব নিয়ে নেয়। আজ তারা আমাদেরকে গণতন্ত্র শেখায়, আমরা কী খাব আমরা কী পরব এবং কীভাবে দেশ চালাবো সেটাও ঠিক করে দেয়। তা বেশ ভাল আপনারা যদি এরকমই চান তা হলে এই বিতর্ক নিয়েই থাকেন যে দোয়াল্লিন হবে না জোয়াল্লিন হবে।

      Reply
  30. Shahida Islam

    I readout the well writen articla “Sadhu Sanghe Oshadhu Hamla “. It’s my bad luck that I am the man of Rajbari district. My area was under the Pangsa upazila. Though now we have got separate upazila named Kalukhai.
    My experience is that, once a man was died in our village home Ballavpur. The religion clerics denied to say namaj-e janaza of that man showing the cause that the man was irregular on saying namaj. I was simply frustrated. In what society we are living.
    We must get rid of that sort of religion bindings adopted by the clerics.
    They are illiterate. They are aggressive and they have no idea about the culture and respecting the values and culture.
    The people of that area have insulted the bouls. If they get due punishment I would be happy.
    Shahida Islam

    Reply
  31. Md. Mahbubul Haque

    বাউলদের নিয়ে অনেক সময় অভিযোগ ওঠে বিশেষত তাদের জীবন যাপন ও সঙ্গ নিয়ে। একারণে তাদের শারিরীকভাবে নির্যাতন করা মানবাধিকারের পরিপন্থী। একজনের ধ্যান, দৃষ্টিভঙ্গী ও যাপিত জীবন একেবারেই তার নিজস্ব বিষয়, ধর্মীয়ভাবে যারা এটাকে দেখে তারা আসলে মৌলবাদী। আনুশে আনাদিল যেহেতু তাদেরকে কাছ থেকে দেখেছেন এবং তার সঙ্গীতসাধনা বাউলকেন্দ্রিক হওয়ায় তাদের পাশে এসে দাঁড়ানোটা অবশ্য কর্তব্য ছিল বলে আমি মনে করি। শুধু তাই নয়, বাউলদের নিয়ে যারা ভাবেন কিংবা সমাজের অন্যান্য উঁচু শ্রেণীর মানুষেরা তাদের পাশে এসে দাঁড়ালে আমি আরো খুশি হতাম।

    Reply
  32. Noyon

    amar moner kotha gulu tomi bolechho. tomader moto bangali ra achhe bolei hoito sopno dekhi, ar pora shuna shesh kore bangladeshe jabar kotha babi. onek shuvo kamona tomar jonno

    Reply
  33. Syed Nazmul Huq

    আনুশেহ আনাদিল, তোমার লেখাটির জন্য ধন্যবাদ। ইসলাম মানে শান্তি। কিন্তু একজন মসজিদের ইমাম সাহেব কীভাবে একাজ করে, আমি সিওর যে ঐ ইমামের সঠিক ইসলামিক শিক্ষার অভাব আছে। আমি একজন মুসলমান হয়ে সত্যিই লজ্জিত। একসময় আমি খুব হেবি-মেটাল ও রক মিউজিকের ফ্যান ছিলাম, কিন্তু এখন আর শুনিনা। এখন যতটুকু পারি ইসলামিক জীবন ব্যাবস্থায় জীবন কাটাই। আল্লাহতায়ালা আমাদের সবাইকে হেদায়েত দান করুক।

    Reply
  34. Kazi Azizul Huq

    Recommended excerpt উদ্ধৃতাংশ একমত: “..বাউলদের অপমানের এই দুঃখজনক ঘটনা …আপনার ইসলাম আমার ইসলাম থেকে ভিন্ন হতে পারে। তাই বলে আমি আপনাকে
    হত্যা করতে পারি না বা নির্যাতন করতে পারি না। আপনি কোরান শরীফ পড়ে এক
    ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারেন, আমি অন্য ধরনের ম্যাসেজ পেতে পারি। কারণ মানুষ
    মাত্রই ভিন্ন। আমরা ভিন্ন হয়েই তো একসঙ্গে থাকতে পারি। জোর করে আমরা কাউকে
    আমাদের মতো বানাতে পারি না। অন্যের অনন্যতাকে সুন্দর হিসেবে দেখা উচিত।”..

    Reply
      • Alpha Kapalik

        এইতো শুনালেন আপনাদের কথা ‘Sobai jodi Quran bujto tobe Baul hoto na.‘ এইবার আমার কথা শোনেন, ‘সবাই যদি তোরাহ, বাইবেল আর কোরআনের সঠিক চরিত্র বুঝতো, তাইলে পৃথিবীতে আজকে ইহুদী খ্রিস্টান ইসলাম ধর্মাদি এতো দিনে গায়েব হয়ে যেত। ধর্ম মানেই অবুঝের বুঝ।

  35. Mostofa

    ছোট লেখা হলেও ভালো লেগেছে!! যারা বাউল গান ভালোবাসে তারা বাউলকেও ভালোবাসে। একটা ধর্মনিরেপেক্ষ রাষ্ট্রে এই ধরনের আচরন মেনে নেয়া যায়না। ধর্মান্ধরা যখন ব্যাক্তিস্বার্থে রাজনীতিতে যোগ দেয় তখন দল , দেশ এবং রাজনীতির জন্য ক্ষতির কারন হয়ে দাঁড়ায়।

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন--

  • ১. স্বনামে বাংলায় প্রতিক্রিয়া লিখুন।
  • ২. ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
  • ৩. প্রতিক্রিয়ায় ব্যক্তিগত আক্রমণ গৃহীত হবে না।

দরকারি ঘর গুলো চিহ্নিত করা হয়েছে—